রাগ এর সাতকাহন ( পর্ব – ০২ )

Lifestyle2 Comments on রাগ এর সাতকাহন ( পর্ব – ০২ )

রাগ এর সাতকাহন ( পর্ব – ০২ )

724 Views

রাত বাজে ১ টা , চোখের মাঝে অনেক ঘুম । ঘুমের চোটে চেয়ার থেকে এই পরি তো সেই পরি অবস্থা ।  তারপরেও লিখছি । বলেন তো কেনো লিখছি ???  ভাবতে থাকেন আমি বরং পোষ্টের দিকে আগাই । 

তো এই পোষ্ট লিখতে লিখতে এক ফ্রেন্ডের সাথে কথা হচ্ছিলো ,তার আবার বেজায় রাগ। হেহেহে আমি এই সুযোগে তাকে এই পোষ্টে কি লিখবো সেটার গুটি কয়েক কথা শুনিয়ে দিলাম । ফ্রি মার্কেটিং করা যাকে বলে আর কি । তো ফিরে আসি মূল পোষ্টে , কী বলেন ?? 

রাগ থেকে যে ভালো আর মন্দ এই দুই ধরণের অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে সেটা এতক্ষণে আমরা জানতে পেরেছি । অতিরিক্ত রাগের ফলে আপনার শারীরিক মানসিক এই দুইয়েরই ক্ষতি হতে পারে । রাগের কারণে যে কত শত সুন্দর সুন্দর সম্পর্কের অবনতি হয়েছে তার কোনো ইয়ত্তা নেই । কী ??? কিছু বুঝেছেন ?? ( * যাদের উনি আছেন তারা খুব সাবধান থাকবেন কিন্তু হেহেহে  ) ।

শুধু অবনতিই নয় স্ট্রোক, হার্ট এট্যাকের ঝুকি বেড়ে যাওয়া থেকে শুরু করে একজন ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা পর্যন্ত কমে যায় । রাগ বেশি হলে মাথা ব্যাথার প্রকোপ বাড়ে, চোখের প্রেশার বেড়ে গিয়ে দৃষ্টিশক্তি কমতে শুরু করে ।   ( কী?? অবাক হলেন ??  হইতে থাকেন , আর আমি লিখতে থাকি,কেমন??  ) । :p চোখের

 

ঘুমের চোটে তো থাকতে পারছি না । রাত ৩ঃ০৯ বাজে । নাহ ঘুমাব না আজকে আর । কি জানি লিখতে বসেছিলাম ??? ওহ মনে পড়েছে রাগ্‌ হুম রাগ । তো এতোক্ষণ রাগ নিয়া তো অনেক আলোচনা হলো । চলুন এখন দেখে নেয়া যাক রাগ কীভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় তার কিছু কৌশল । 

এই যে পোষ্টটা আপনি পড়ছেন , কেনো পড়ছেন বলেন তো  ?? বলা মাত্রই কী রাগ কমে যায় ?? নাহ কমে না । রাগ কমানোর ব্যপার যখন পড়ছেন এই পোষ্টে এসে তখন আপনাকে বলি রাগ যখন উঠে তখন এসব কথা কি মনে থাকে না ??? অবশ্য মনে থাকার কথাও না হেহেহে । 

যাই হোক মুল আলোচনায় ফিরে আসি । 

০১…. রাগ উঠে গেলে একটা কাজ করতে পারেন প্রাথমিকভাবে । আস্তে আস্তে ১ থেকে ১০ পর্যন্ত গুনা শুরু করেন , নাহলে ১০০ থেকে উল্টোদিক থেকে গুনে গুনে ১ পর্যন্ত আসেন । রাগ হাওয়া হয়ে যাবে । 

 

০২…. আচ্ছা তাহলে প্রথম উপায়টি কাজ করে নাই ?? আসলেই ?? তাহলে চোখ বন্ধ করে গভীর নিঃশ্বাস নেন । কারণ এই পদ্ধতিতে শরীরে পজিটিভ এনার্জির সৃষ্টি হয় বলে ধারণা করা হয়ে থাকে । দেখেন তো এটা করে কি হয় । 

০৩…. হুম ধরে নিলাম উপরের ২টার মাঝে একটাও কাজ করে নি । তাহলে এখন কি করা ?? এই পর্যায়ে আপনি খাতা কলম নিয়ে বসে পড়ুন / আর বসে বসে লিখা শুরু করুন । আপনি চাইলে কম্পিউটার বা মোবাইলেও লিখতে পারেন । কি ?? অবাক হলেন ?? হওয়ারই কথা । নিবিষ্ট মনে লিখতে শুরু করলে রাগ আর থাকবে না , অনেকাংশেই কমে যাবে ।

০৪…. এই ৩টা কাজ করল না ??? জটিল মানুষ তো আপনি । আচ্ছা এক কাজ করেন বাসায় যদি ছোট ছোট বাচ্চা থাকে তাদের সাথে খেলতে পারেন । নিশ্চিতভাবেই আপনার রাগ কমে গিয়ে মন ভালো হয়ে যাবে । দেখেন ট্রাই করে । 

০৫…. আচ্ছা রাগ যদি না কমে তাহলে নিজেকে এইবার অন্যদের  থেকে আলাদা করুন । নিজেকে একটু সময় দিন । পুরো ঘটনা নিয়ে ভাবুন । আর কি কারণে রাগ এর সৃষ্টি হলো সেটা খুজে বের করার চেষ্টা করুন । সেই সাথে ০২ নং পদ্ধতিটি ফলো করুন । কাজে দেবে ।

০৬….. রাগান্বিত অবস্থায় আপনি যত চুপ থাকবেন ততই ভাল ( আমার মতে )। কারণ আপনি যতই কথা বলবেন ততই আপনার রাগের পরিমাণ বাড়বে আর আপনার মেজাজ সপ্তমে চড়বে । হেহেহে আর তখন কি করবেন সেটা নিশ্চই আন্দাজ করতে পেরেছেন ?? হ্যা তাই রাগ কমাতে হলে ঐ সময় কথা বলাটা কমিয়ে আনুন আর পারলে কিছুক্ষ্ণ কথা না বলে চুপাচাপ ও শান্ত থাকুন ।

০৭….. রাগ করে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে যাবেন না । জানেন তো রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন । আর রাগের মাথায় নেয়া সিদ্ধান্ত নেতিবাচকই হয়ে থাকে ।তাই রাগের মাথা সিদ্ধান্ত নিতে যাবেন না । একগ্লাস ঠান্ডা পানি পান করুন তারপর শুয়ে পড়ুন অল্প সময়ের জন্য । যদি শুতে না পারেন তাহলে বসে যান আর যে কারণে আপনা রাগ হয়েছে সেটা মাথা থেকে বের করে ফেলুন । দেখবেন মেজাজ অনেকটাই ফুরফুরে লাগছে । 

আর তো কিছু মাথায়  আসছে না এই মুহুর্তে । চোখের মাঝেও জ্বালাপড়া করছে । যাই ঘুমাই এখন । পরে মনে হলে  পোষ্ট আপডেট করে দিব । আপাতত এটুকুই সই ………..

I am a zero starter. Nothing to say right now, just wait and see. i will come like a thunder.

2 thoughts on “রাগ এর সাতকাহন ( পর্ব – ০২ )

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top